গুগল এবং ফেসবুকের উপর করারোপ করায় ক্ষুব্ধ যুক্তরাষ্ট্র!

গুগল, ফেসবুক, অ্যাপল, অ্যামাজনের ওপর করারোপ করেছে ফ্রান্স। গত বৃহস্পতিবার দেশটির সংসদ এমন আইন পাস করেছে। নতুন আইনের ফলে এসব প্রতিষ্ঠানকে ফ্রান্সে অতিরিক্ত তিন শতাংশ হারে কর দিতে হবে৷

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ফ্রান্সের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তদন্ত আহ্বান করেছেন৷ মার্কিন বাণিজ্য প্রতিনিধি রবার্ট লাইটহাইজার বলেছেন, প্যারিস ‘অন্যায়ভাবে’ যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে৷

তবে ফ্রান্সের কর্মকর্তারা বলছেন, জিএএফএ (গুগল, অ্যাপল, ফেসবুক ও অ্যামাজন) নামে পরিচিতি পাওয়া এই আইনের আওতায় শুধু মার্কিন কোম্পানিগুলো পড়বেনা৷ চীন, জার্মানি, স্পেন ও যুক্তরাজ্যের কোম্পানিকেও এই কর দিতে হবে৷ সব মিলিয়ে প্রায় ৩০টির মতো কোম্পানি এই করের আওতায় পড়বে৷

যেসব কোম্পানি ব্যবহারকারীদের তথ্য অনলাইন বিজ্ঞাপনদাতাদের কাছে বিক্রি করে, যে কোম্পানিগুলোর বৈশ্বিক বিক্রয় সাড়ে সাতশ মিলিয়ন ইউরোর বেশি এবং যাদের আয় ফ্রান্সে ২৫ মিলিয়ন ইউরোর বেশি, সেসব কোম্পানিকেই করের আওতায় আনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা৷

ফ্রান্সের অর্থ মন্ত্রণালয় আশা করছে, এই আইনের কারণে বছরে প্রায় ৫০০ মিলিয়ন ইউরো আয় হবে এবং দ্রুতই এই পরিমাণ বাড়বে বলেও আশা করছে দেশটি৷

১৯৭৪ সালের মার্কিন বাণিজ্য আইনের ৩০১ ধারার আওতায় ফ্রান্সের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ ফলে কয়েক সপ্তাহ ধরে গণশুনানি অনুষ্ঠিত হওয়ার পর ফ্রান্সের উপর কর বসানোসহ অন্যান্য ব্যবস্থা নিতে পারে যুক্তরাষ্ট্র৷

চীনের বিরুদ্ধে বাণিজ্য ঘাটতির অভিযোগ এনে ট্রাম্প সম্প্রতি দেশটির সঙ্গে যে বাণিজ্য যুদ্ধ শুরু করেছেন, সেটির শুরুও ৩০১ ধারার মাধ্যমে হয়েছিল৷ ফ্রান্সের অর্থমন্ত্রী ব্রুনো লে ম্যার বলেন, ‘ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ফ্রান্সের বিরুদ্ধে ৩০১ ধারা ব্যবহার করল যুক্তরাষ্ট্র৷ মিত্রশক্তিদের মধ্যে সমস্যার সমাধানে হুমকি নয়, অন্য উপায় ব্যবহার করতে হয়৷’

প্রযুক্তি কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে ফ্রান্সই প্রথম কোনো বড় অর্থনীতির দেশ, যারা করারোপ করল৷ তবে ইতিমধ্যে ব্রিটেন এমন করারোপের খসড়া প্রকাশ করেছে৷ সেটি পাস হলে গুগল, ফেসবুকের মতো কোম্পানির উপর দুই শতাংশ হারে কর বসাতে পারে দেশটি৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *