জেনে নিন এশিয়া কাপের ইতিহাস

আর্টিকেল: ১৯৮৪ তে শারজাহ’য় শুরু হয়েছিলো এশিয়া কাপের আনুষ্ঠানিকতা। এখন পর্যন্ত ১৩টি আসর গড়িয়েছে মাঠে। এর মাঝে ১২ আসর ওয়ানডে ফরম্যাটে হলেও, শেষবার হয়েছে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে। সর্বাধিক ৬বার শিরোপার স্বাদ পেয়ে এশিয়া কাপের সবচেয়ে সফল দল ভারত। ১২ বার অংশ নিয়ে ২ বার ফাইনালে উঠলেও শিরোপা জেতা হয়নি বাংলাদেশের।

১৩ সেপ্টেম্বর, ১৯৮৩ এশিয়ার ক্রিকেট উন্নয়নের জন্য নতুন একটা সংগঠনের জন্ম হয়; এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল। যার অধীনে এক বছর পরই সংযুক্ত আরব আমিরাতের শারজাহ’য় অনুষ্ঠিত হয় এশিয়া কাপের প্রথম আসর। অংশ নেয় ভারত, পাকিস্তান এবং মাত্রই আইসিসির সদস্যপদ পাওয়া শ্রীলঙ্কা। প্রথম সে আসরে লঙ্কানদের হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় ভারত।

এরপর ৮৬’তে শ্রীলঙ্কায় বসে ২য় আসর। প্রথমবারের মতো সুযোগ পায় বাংলাদেশ। চ্যাম্পিয়ন হয় স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। ১৯৮৮’তে এশিয়া কাপে প্রথমবারের মতো স্বাগতিক হয় বাংলাদেশ। ২য় বারের মতো সেখানে শিরোপা উৎসব করে ভারত।

৯০’এর আসরে রাজনৈতিক বৈরিতায় ভারতে খেলতে যায়নি পাকিস্তান। শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে আবারো শিরোপা জিতে নেয় ভারত। ১৯৯৩ এ ভারত-পাকিস্তান অস্থিরতায় বাতিল হয়ে যায় টুর্নামেন্টটি।

৯৫’এ ১১ বছর পর আবারো শারজাহতে ফিরে আসে এশিয়া কাপ। টানা তৃতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন হয় ভারত। ৯৭’এ আবারো স্বাগতিক লঙ্কানরা। এবারও দেশ থেকে শিরোপা নিয়ে যেতে দেয়নি জয়সুরিয়ারা। ২য়বারের মতো শিরোপা জিতে শ্রীলঙ্কা।

২০০০ সালে স্বাগতিক ছিলো বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে প্রথম শিরোপা জেতে পাকিস্তান। ২০০৪ এ আরব আমিরাত এবং হংকং’কেও আমন্ত্রণ জানানো হয় এশিয়া কাপে। ৩য় শিরোপা জেতে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা।

এশিয়া কাপের নবম আসরে এসে প্রথমবারের মতো স্বাগতিক হওয়ার সুযোগ পায় পাকিস্তান। করাচির ফাইনালে ভারতকে হারিয়ে ২০০৮’র চ্যাম্পিয়ন হয় শ্রীলঙ্কা।

২০১০ এ আবারো স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। সেবারই প্রথম দেশের মাটিতে শিরোপা জিততে ব্যর্থ হয় লঙ্কানরা। শিরোপা যায় ভারতের ঘরে।

এরপরের টানা ৩ আসরের-ই স্বাগতিক ছিলো বাংলাদেশ। ২০১২ তে পাকিস্তানের কাছে হেরে শিরোপা জেতা হয়নি টাইগারদের। পরের আসরে ২০১৪’তে চ্যাম্পিয়ন হয় শ্রীলঙ্কা। এ আসর থেকেই এশিয়া কাপে সুযোগ দেয়া হয় আফগানিস্তানকে।

২০১৬ আসর ছিলো এশিয়া কাপের ইতিহাসের প্রথম টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট। সেখানে বৃষ্টিবিঘ্নিত ফাইনালে আবারো টাইগার ভক্তদের কাঁদিয়ে ৬ষ্ঠ শিরোপা জিতে নেয় ভারত।

২৩ বছর পর আতুর ঘরে ফিরে যাচ্ছে এশিয়া কাপ। আর মাত্র কয়েকদিন অপেক্ষার পরই জানা যাবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে কে হাসবে শেষ হাসি? নতুন কেউ না পুরোনো কারো হাতেই থেকে যাবে সোনালি ট্রফিটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *