ভারত-চীনকে সহায়তা দেয়া যুক্তরাষ্ট্রের পাগলামি, বন্ধ করে দেব

আর্টিকেল: যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শুক্রবার বলেছেন, তিনি ভারত ও চীনের মতো বর্ধিষ্ণু অর্থনীতির দেশকে দেয়া ভর্তুকি বন্ধ করতে চান।

ভারতের হিন্দুস্তান টাইমস পত্রিকা জানায়, ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রকে ‘উন্নয়নশীল দেশ’ মনে করেন এবং তার দেশ অন্যান্য দেশের চেয়ে দ্রুততর হারে উন্নতি করুক সেটা চান।

নর্থ ডেকোটার ফার্গো শহরে একটি তহবিল সংগ্রহ অনুষ্ঠানে ভাষণ দেয়ার সময় তিনি একথা বলেন। একই সঙ্গে, চীনকে ‘বিশাল অর্থনৈতিক শক্তি’তে পরিণত করার জন্য ওয়ার্ল্ড ট্রেড অরগানাইজেশনকে (ডব্লিউটিও) দোষারোপ করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

‘আমরা কয়েকটি দেশকে বর্ধিষ্ণু অর্থনীতির দেশ হিসেবে বিবেচনা করছি। কিছু দেশ এখনও যথেষ্ট পরিপক্ক হয়নি, তাই আমরা তাদেরকে ভর্তুকি দিচ্ছি। পুরো জিনিসটাই পাগলামি। ভারত ও চীনের ক্ষেত্রে আমরা বলছি- ওরা তো আসলে বৃদ্ধি পাচ্ছে’ যোগ করেন তিনি।

ট্রাম্প বলেন, এসব দেশ নিজেদের উন্নয়নশীল মনে করে এবং ‘এই ক্যাটেগরিতে তারা ভর্তুকি নেয়’।

‘আমাদের অদেরকে টাকা দিতে হয়। এই পুরো বিষয়টিই পাগলামি, কিন্তু আমরা এটা বন্ধ করতে যাচ্ছি। আমরা এটা বন্ধ করতে যাচ্ছি। আমরা এটা থামিয়ে দিয়েছি’ যোগ করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘আমরাও একটা উন্নয়নশীল দেশ, ঠিক আছে? আমরা এটাই। আমি যতদূর জানি আমরা একটা উন্নয়নশীল দেশ। আমি ওই ক্যাটাগরির অন্তর্ভুক্ত হতে চাই কারণ আমরাই বৃদ্ধি পাচ্ছি। আমরা অন্য যে কারও চেয়ে দ্রুত বেড়ে উঠতে চাই।’

নিজেকে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের ভক্ত দাবি করে ট্রাম্প বলেন, ‘আমদেরকে ন্যায়বিচার করতে হবে। আমরা চীনকে প্রতি বছর যুক্তরাষ্ট্র থেকে ৫০০ বিলিয়ন ডলার নিয়ে গিয়ে তাদের দেশ পুনর্নির্মাণ করতে দিতে পারি না।’

মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরও মনে করেন, বাইরের আক্রমণ থেকে ধনী দেশগুলোকে রক্ষা করার জন্য সেই দেশগুলোর উচিত যুক্তরাষ্ট্রকে টাকা দেয়া।

‘আমি মনে করি, তাদের উচিত আমদেরকে এজন্য টাকা দেয়া। আমরা সারা বিশ্বকে দেখভাল করছি এবং তারা এটা একদম পাওনা হিসেবে নিয়েছে’ মন্তব্য করেন ট্রাম্প।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *