মিঠুনের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ এ দলের সিরিজ জয়

খেলাধুলা: প্রথম দুই ম্যাচে সমতা বিরাজ করায় তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ ম্যাচটি সিরিজ–নির্ধারণী ম্যাচ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। প্রথম দুই ম্যাচে দুই অঙ্ক ছোঁয়ার আগেই প্যাভিলিয়নের ফেরত যান মিঠুন। কিন্তু শেষ ম্যাচে প্রমোশন পেয়ে ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে নেমে খেললেন বিধ্বংসী ইনিংস। আর এতেই সিরিজ বাংলাদেশ এ দলের।

ডাবলিনে শুক্রবার বৃষ্টি বিঘ্নিত তৃতীয় ও শেষ আনঅফিসিয়াল টি-টোয়েন্টিতে আয়ারল্যান্ড ‘এ’ দলকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। এই জয়ে তিন ম্যাচের সিরিজ বাংলাদেশ ‘এ’ দল জিতল ২-১ ব্যবধানে।

প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ ও দ্বিতীয় ম্যাচে আইরিশরা জয়লাভ করে। বৃষ্টির কারণে ম্যাচের দৈর্ঘ্য নেমে আসে ১৮ ওভারে। টস জিতে ব্যাট করতে নামে আইরিশরা।

স্বাগতিকদের শুরুটা যদিও ভালো হয়নি। বাংলাদেশের বোলারদের কল্যাণে ৪৪ রানেই হারায় ৩ উইকেট। এরপরই চতুর্থ উইকেটে ঘুরে দাঁড়ায় আয়ারল্যান্ড। চতুর্থ উইকেটে উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড ও সিমি সিং মিলে ১১১ রানের জুটি গড়েন। এই দুজনের ফিফটিতে শেষ পর্যন্ত ৫ উইকেট হারিয়ে ১৮৩ রানের পুঁজি পায় আইরিশরা।

পোর্টারফিল্ড ৩৯ বলে ১২টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে করেন সর্বোচ্চ ৭৮ রান। সিমি ৪১ বলে ৭ চার ও ২ ছক্কায় ৬৭ রানে অপরাজিত ছিলেন। এ ছাড়া দুই অঙ্ক ছুঁয়েছেন শুধু স্টুয়ার্ট থম্পসন (১২)। বাংলাদেশের পক্ষে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ৪টি ও শরিফুল ইসলাম ১টি উইকেট লাভ করেন।

জয়ের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশ ‘এ’ দলকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন মোহাম্মদ মিঠুন ও অধিনায়ক সৌম্য সরকার। এই দুজনের উদ্বোধনী জুটিতে আট ওভারেই বাংলাদেশ ছুঁয়ে ফেলে একশ রান। সৌম্য দেখেশুনে খেললেও শুরু থেকেই আগ্রাসী ছিলেন মিঠুন।

২৩ বলে ঝড়ো গতিতে ফিফটি তুলে নেন মিঠুন। সৌম্য ৩০ বলে ২ চার ও ৪ ছক্কায় ৪৭ রান করে ফিফটি থেকে ৩ রান দূরে থাকতে ফিরেন। আর এতে করে ভাঙে ১১৭ রানের উদ্বোধনী জুটি।

এরপর দ্রুতই ফিরে যান নাজমুল হোসেন শান্ত (৬) ও জাকির হাসান (১৩)। অপরদিকে মিঠুন আইরিশ বোলারদের ওপর স্টিমরোলার চালাতে থাকেন। শেষ পর্যন্ত ৩৯ বলে ৭ চার ও ৬ ছক্কায় ৮০ রানের আলো ঝলমলে ইনিংস খেলে ফেরেন মিঠুন। শেষ দিকে আল-আমিন জুনিয়র ও মুমিনুল হকের ২৫ রানের জুটিতে ৭ বল বাকি থাকতেই দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় দল। আল-আমিন ১৩ বলে ২১ ও মুমিনুল ৬ বলে ১১ রানে অপরাজিত থাকেন। আইরিশদের পক্ষে শেন গেটক্যাট ৩টি ও লিটল ১টি উইকেট নেন। তিন ম্যাচে ১১৫ রান করে সিরিজসেরা হয়েছেন সৌম্য সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *