শিক্ষকের নির্যাতনে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

স্থানীয় আর্টিকেল: মাদারীপুরের চরমুগরিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের মারধরে দশম শ্রেণীর স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা ঘটনায় প্রধান শিক্ষকের বিচার দাবীতে মানববন্ধন করেছেন সহপাঠিরা। বৃহস্পতিবার দুপুরে বিদ্যালয়ের সামনে মানববন্ধন ও পরে চরমুগরিয়া বন্দরে বিক্ষোভ মিছিল করে সড়কে অবস্থান করে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। খবর পেয়ে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে শিক্ষককে আইনের আওতায় আনার আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

বিদ্যালয় সূত্র জানায়, গত শনিবার স্কুল চলাকালীন সময়ে কোন কারণ ছাড়াই সাথী আক্তার নামে দশম শ্রেণীর ওই স্কুলছাত্রীকে প্রধান শিক্ষক নূর হোসেন মারধর ও অশালীন গালিগালাজ দেন। শিক্ষকের মারধর ও অশালীন গালিগালাজের কারণে পরে বাসায় গিয়ে ওই শিক্ষার্থী ক্ষোভে কীটনাশক পান করে। প্রথমে সাথীকে গুরুতর আহত অবস্থায় মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার রাতে সাথী মারা যায়।

সাথীর পরিবার জানায়, মাদারীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এই বিষয়ে জবানবন্দী দিয়ে গেছে সহপাঠীদের কাছে যা তারা মোবাইলে রেকর্ড করে রেখেছে। এছাড়া সহপাঠীর মৃত্যুর ঘটনায় ছাত্রীরা প্রতিবাদ করলে তাদের বিদ্যালয় থেকে বহিস্কারের হুমকিও দেন প্রধান শিক্ষক।

এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে প্রধান শিক্ষক নূর হোসেন আগেভাগেই স্কুল ছুটি ঘোষণা দিয়ে চলে যান। এ ব্যাপারে জানতে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায় ওই শিক্ষকের।

মাদারীপুর জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন দেব বলেন, শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করে অভিযুক্ত শিক্ষকের বিচার দাবী করে সড়ক অবরোধের চেষ্টা করে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। মামলা হলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *