পশ্চিমবঙ্গে বন্দি জীবন যাপন করছে ২শ’ বাংলাদেশি শিশু

জাতীয় আর্টিকেল: পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ২৭টি সংশোধনাগারে এই মুহূর্তে দুই শতাধিক বাংলাদেশি শিশু-কিশোর বন্দি রয়েছে। যাদের সবার বয়স ১৮ বছরের নিচে। এদের মধ্যে কেউ কেউ বিভিন্ন সময়ে বন্ধুদের সঙ্গে ভ্রমণে কিম্বা দালালের খপ্পরে পড়ে আটক হয়েছিল।

আবার কেউ কাজের সন্ধানে ভারতের অনুপ্রবেশের সময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে ধরা পড়ে। শুধু নাগরিকত্ব নিশ্চিতকরণ প্রক্রিয়ার মধ্যদিয়ে তাদের দেশে ফেরত পাঠাতেও সময় লেগে যায় অনেক। তবে, আশার কথা হলো- আগামী এক মাসের মধ্যে এদের অধিকাংশকেই ফিরিয়ে নেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশের কলকাতার উপ-দূতাবাস।

কলকাতার অদূরে এই সংশোধনাগারের আবাসিকের সংখ্যা প্রায় হাজার খানেক। এর মধ্যে বাংলাদেশির সংখ্যা ২৮। আটক এই শিশু-কিশোরের কেউ তিন বছর, কেউ আবার তিন দিনের বাসিন্দা। এদের মধ্যে খুলনার দশ বছরের সুমন সর্দার, ১১ বছরের ময়মনসিংহের মাহিম, ১৬ বছরের নড়াইলের হৃদয়, বাগেরহাটের শফিকুল তালুকদারসহ রয়েছে অনেক শিশু কিশোর।

কলকাতার বাংলাদেশ উপ-দূতাবাসের হিসাব বলছে, এই মুহুর্তে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের এই সংশোধনাগরের মতো বাকি ২৬ টি সংশোধনাগারে দুই শতাধিক বাংলাদেশি শিশু-কিশোর বন্দি রয়েছে। যাদের বাড়ি ফিরতে হলে প্রয়োজন নাগরিকত্বের সনদ। আর এই কাজটি করে থাকে কলকাতার বাংলাদেশ উপ-দূতাবাস।

বি এম জামাল হোসেন (কাউন্সিলর এবং হেড অফ চ্যান্সারি) বলেন, ‘তাদেরকে যত দ্রুত সম্ভব বাংলাদেশে পাঠাতে চাইছি। তবে, পূর্বশর্ত হলো তাদের জাতীয়তা নিশ্চিত করা।’

বুধবার (২৫ জুলাই) কিশলয় সংশোধনাগারের বাংলাদেশি শিশু-কিশোরের প্রাথমিক সাক্ষাৎকার নেয়া শেষ হলেও বাংলাদেশ থেকে তাদের নাগরিকত্ব নিশ্চিত হওয়ার পরই এদের দেশে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে। মলয় চ্যাটার্জি (সুপার, কিশলয় সংশোধণাগার, বারাসাত) বলেন, ‘এটা দুদেশের ব্যাপার। আমি চাইব তারা যেন দ্রুত বাড়ি ফিরে যেতে পারে।’

শুধু কিশলয়ে নয়, কলকাতার দ্রবাশ্রম, হাওড়ার লিলিুয়া, উত্তর-দিনাজপুরের শুভায়ন সংশোধনাগারেও আটক বাংলাদেশি কিশোরদের নাগরিকত্ব প্রমাণের প্রাথমিক সাক্ষাৎকার নেয়া শুরু হয়েছে। আগামী এক মাসের মধ্যে অন্তত ১৮০ শিশু-কিশোরকে বাংলাদেশে তাদের স্বজনদের হাতে তুলে দেয়া হবে বলে সময় নিউজকে কলকাতার উপ-দূতাবাস সূত্র নিশ্চিত করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *