‘সে আমার ছাত্র ছিলো, হয়তো তাকে শিখাতে পারিনি’: এমাজ উদ্দিন

জাতীয় আর্টিকেল: প্রধামমন্ত্রী যতই বলুক কাউকে ভোটে আনার দায়িত্ব সরকারের নয়। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরপেক্ষতা ও সবার অংশগ্রহণের পরিবেশ প্রধামমন্ত্রীকেই তৈরি করতে হবে। আর এটা না করে নির্বাচন ব্যবস্থায় যাওয়া যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ব‌বিদ্যাল‌য়ের সা‌বেক ভি‌সি প্র‌ফেসর এমাজ উদ্দিন।

সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে স্বাধীনতা অধিকার আন্দোলন আয়োজিত খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা ও সংকটে আগামী জাতীয় নির্বাচন শীর্ষক গোল টেবিল আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ঢাবির সাবেক এ ভিসি বলেন, এখন আর কারো জেলে যাওয়ার দরকার নাই। শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। কোনো সংঘাতে জড়ানো যাবে না।

তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেছেন বিএনপিকে ঘরের মধ্যে রাজনীতি করতে। সে হয়তো জানে না রাজনীতি সব জায়গাতে হয়। সে আমার ছাত্র ছিলো। আমি হয়তো তাকে শিখাতে পারিনি।

তাই এ মুহূর্তে তার কথা শুনে থাকাই ভালো। খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করতে হলে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে মন্তব্য ক‌রে এলডিপি সভাপতি বলেন, আমাদের সিদ্ধান্ত নিতে হবে খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে বিএনপি ও বিশদল নির্বাচনে অংশ নিবে কিনা? কারণ এখন ঐক্যবদ্ধ হতে না পারলে আন্দোলন সফল হবে না। কারণ বর্তমান সরকার সহজে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিবে না।

বিএনপি চেয়ারপারসনের কারামুক্তির বিষয়ে তিনি বলেন, সরাকরের আচরণ দেখে মনে হয় না খালেদা জিয়াকে সহজে মুক্তি দিবে। কিন্তু বিএনপির কিছু কিছু নেতা বলেন আজ, কাল খালেদা জিয়ার জামিন হয়ে যাবে।

কিন্তু তারা কিসের ভিত্তিতে বলেন সেটা তারাই ভালো জানেন। যেখা‌নে সরকার এই সেই ক‌রে জনগণ‌কে বু‌ঝি‌য়ে দি‌চ্ছে। তাই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা আমাদের জন্য এখন সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাই শান্তিপূর্ণ আন্দোলনেরর মাধ্যমে তাকে কারাগার থেকে মুক্ত করে আনতে হবে। এর কোনো বিকল্প নেই।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ কখনও স্বাভাবিক পন্থায় ক্ষমতায় আসেনি। তারা কখনও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে বা কখনও লগি-বৈঠা দিয়ে পিটিয়ে মানুষ হত্যা করে ক্ষমতায় এসেছে। তাদের তখন দমন করা কঠিন ছিলো না।

সংগঠনের সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান মনির সভাপতিত্বে গোলটেবিল আলোচনায় বক্তব্য দেন কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম, এলডিপির যুগ্ম সম্পাদক শাহাদাত হোসেন সেলিম প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *