বুশরাকে বিয়ে করায় প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন শেষ ইমরানের

আন্তর্জাতিক আর্টিকেল: একসময় ছিলেন বিশ্ব মাতানো ক্রিকেটার। সেখান থেকে রাজনীতির মঞ্চে। সেখানেও মাতিয়ে চলছেন সবাইকে। পাকিস্তানের রাজনীতিতে এখন যে অবস্থা তাতে বেশ শক্ত অবস্থানেই আছে ইমরান খানের তেহরিক-ই-ইনসাফ।

কিন্তু তার সাবেক স্ত্রী রেহাম খান বলেছেন, তৃতীয় বিয়ের পর ইমরানের সে স্বপ্ন টুকরো টুকরো হয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার ডেইলি মেইলকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এমন মন্তব্য করেছেন সাবেক এই টেলিভিশন উপস্থাপিকা।

রোববার লাহোরে এক ঘরোয়া অনুষ্ঠানে বুশরা মানেকাকে বিয়ে করেন ৬৫ বছর বয়সী ইমরান খান। সেই বিয়ের ছবি প্রকাশ পাওয়ার পরই মূলত এ ধরনের মন্তব্য করলেন রেহাম। তিনি বলেন, ইমরান খানের বহুদিনের স্বপ্ন তিনি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হবেন।

কিন্তু একজন নারীকে মাথা থেকে পা পর্যন্ত ঘোমটা দিয়ে তিনি সবার থেকে নিজেকে আলাদা করে ফেলেছেন ইমরান। নির্বাচনের চার মাসে এ ধরনের বিষয়টি কেউ ভালোভাবে নেয়নি, এটা রাজনৈতিক আত্মহত্যা।

রেহাম বলেন, এ ধরনের ঘোমটা খুব একটা দেখা যায় না। আমি কঠোর হতে চাই না। কিন্তু মেজাজ কিছুটা বিগড়ে গিয়েছিল। আমার অস্বস্তি লেগেছে। তিনি আরও বলেন, ইমরান খান তার নতুন স্ত্রী ছাড়া কোনো সিদ্ধান্ত নেবেন না। তাই রেহাম এটিকে ইমরানের রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের ইতি হিসেবে দেখছেন।

রেহাম অভিযোগ করেছেন, ইমরান তার নতুন স্ত্রীকে গেলো তিন বছর ধরে চিনতেন। তিনি বলেন, আমি তার স্ত্রী থাকা অবস্থায়ই তিন বছর আগে বুশরা সঙ্গে তার যোগাযোগ হয়। তিনি বিশ্বস্ত মানুষ নন।

উল্লেখ্য, ইমরানের তৃতীয় স্ত্রী বুশরার বয়স ৪৪ বছর। খাওয়ার ফরিদ মানেকা নামে একজন ঊর্ধ্বতন শুল্ক কর্মকর্তার সঙ্গে ইসলামাবাদে বিয়ে হয়েছিল বুশরার। তার পাঁচ সন্তান রয়েছে। এর আগে ১৯৯৫ সালে জেমিমা গোল্ডস্মিথকে বিয়ে করেন ইমরান। সেটি নয় বছর স্থায়ী হয়েছিল। আর রেহামের সঙ্গে সংসার টিকেছিল মাত্র ১০ মাস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *