মুক্তি পেলো তামিল “আয়নাবাজি”

বিনোদনঃ শরাফত করিম আয়নার ভেলকি এত সহজে ভুলে যাওয়ার কথা নয়। ২০১৬ সালে মুক্তি পাওয়া ‘আয়নাবাজি’র আলোচিত সেই চরিত্রে অভিনয় করে চমকে দিয়েছিলেন চঞ্চল চৌধুরী।

এবার তেলেগু ছবিতেও তৈরি হলো একই চরিত্রের চমক। ‘গায়ত্রী’ নামের ছবিতে চঞ্চলের সেই চরিত্রে দেখা গেছে তেলেগু অভিনেতা মোহন বাবুকে।

তেলেগু ভাষায় ‌‘গায়ত্রী’ নামের এ ছবি গতকাল (৯ ফেব্রুয়ারি) মুক্তি পেয়েছে। এটি নির্মাণও করা হয়েছে বাংলাদেশের ‘আয়নাবাজি’র কপিরাইট নিয়ে।

ভারতীয় চলচ্চিত্র প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শ্রী লক্ষ্মী প্রসন্ন পিকচার্স ২০১৭ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে তামিল ও তেলেগু ভাষায় নির্মাণের জন্য ‘আয়নাবাজি’র স্বত্ব কিনে নেয়। তারই প্রথম কিস্তি হিসেবে শুক্রবার তেলেগু ভাষায় মুক্তি পেলো ‘গায়ত্রী’।

বিষয়টি নিয়ে ‘আয়নাবাজি’র পরিচালক অমিতাভ রেজা চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘তারা তো আগেই অনুমতি ও স্বত্ব নিয়েছে। তবে ছবিটি যে মুক্তি পেয়েছে সেটা কেউ জানায়নি।

এখনই জানতে পারলাম। শুনে খুবই ভালো লাগছে। আমি এখনও বিস্তারিত জানি না। আজ সেখানকার পত্রিকাগুলো থেকে খোঁজ নেওয়ার চেষ্টা করবো। সেখানেও যদি ছবিটি ভালো চলে, সেই আনন্দটা আমাদেরও ছুঁয়ে যাবে।’

এদিকে দক্ষিণ ভারতে ছবিটি মুক্তির পর বেশ কিছু তেলেগু পত্রিকায় অনেক পজেটিভ রিভিউ প্রকাশ করেছে। ‘তেলেগু সিনেমা’ পত্রিকার মাধ্যমে জানা যায়, নতুন ছবির এ সংস্করণে গল্পের প্রেক্ষাপট ঠিক রাখা হয়েছে।

তবে চঞ্চল চৌধুরী মানে মোহন বাবু সেই ছবিতে বিপত্নীক। তার যুবতী একটি মেয়ে আছে। নিজে মঞ্চাভিনেতা। টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন রূপ ধরে জেল খাটেন। তেলেগু সিনেমাটিতে বাবা ও মেয়ের আবেগ উঠে এসেছে।

কপিরাইট কিনে নিলেও ‘আয়নাবাজি’র ছায়া থেকে নতুনভাবে ‘গায়ত্রী’ ছবিটির চিত্রনাট্য করেছেন ডায়মন্ড রত্ন বাবু। ১২৫ মিনিটের এ ছবিটি পরিচালনা করেছেন ম্যাডান রামিজানি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *