পেপ আমাকে সবসময় বলেন, ‘মেসি’কে দেখে শেখো

খেলাধুলা: লিওনেল মেসি বিশ্ব ফুটবলের জাদুকর। বিশ্বের সকল ফুটবলারের জন্যই এক অনুকরণীয় আদর্শ আর্জেন্টাইন এই তারকা। তাই তো বিশ্বের প্রায়ই সকল ফুটবলবোদ্ধা এবং খেলোয়াড় মেসির প্রশংসায় পঞ্চমুখ। ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে মেসিকেই মানেন তারা।

বর্তমানে নিজের ফুটবল শৈলী দিয়ে বিশ্বকে মোহিত করে রেখেছেন এলএমটেন। লিওনেল মেসি মানেই পায়ের জাদুতে মোহিত হবে ফুটবল বিশ্ব। তটস্থ থাকবে প্রতিপক্ষের ডিফেন্স, গোলরক্ষক। ম্যাচে হবে গোলের ফুলঝুড়ি।

গোল করবেন আবার সতীর্থদের দিয়ে গোল করাবেন। ফুটবল মাঠে থাকবে শিল্পীর ছোঁয়া। তাকে সেরা মানতে নারাজ নন কেউই। অন্যান্য ফুটবলবোদ্ধাদের মতো মেসিকে সেরা মানেন সাবেক বার্সা বস ম্যানচেস্টার সিটির কোচ পেপ গার্দিওলাও।

বিষয়টি আগেও তার বক্তব্যে বেশ কয়েকবার উঠে এসেছে। বার্সা ছাড়ার পূর্বে মেসিকে নিয়ে তিনি বলেছিলেন, আমি মেসিকে চেয়েছিলাম সেরা বানাতে সেই আমাকে সেরাদের সেরা বানিয়ে ছাড়লো।

এটা হয়তো পুরনো হয়ে গেছে অনেকের মনে নাও থাকতে পারে। তাকে নিয়ে সদ্য বার্সা ছেড়ে চীনের ক্লাবে যোগ দেয়া ক্লাব ও জাতীয় দলের সতীর্থ হ্যাভিয়ের মাসচেরানো বলেন, মেসি আমার দেখা সবচেয়ে সেরা ফুটবলার।

কিন্তু সে কখনোই বিষয়টা নিয়ে গর্ব করে না। তিনি আরো বলেন, মেসি এতটাই ভাল খেলে যে, অনেকেই মনে করে সে মানুষ নয়। সত্যি বলতে মেসি খুবই নম্র একজন খেলোয়াড়। এই অসাধারণ গুণ নিয়ে তার কোনো অহংকার নেই।

এত গেল মেসির মহানুভবতা কিংবা সেরা হওয়ার গল্প। কিন্তু এবার মেসিকে আবারো লাইমলাইটে আনলেন ম্যানসিটির স্ট্রাইকার লেরয় সানে। সানের কথায় অনেকে অবাকই হতে পারেন। বাস্তবে সানে জানালেন ম্যানসিটি কোচ গার্দিওলা তাকে সবসময় মেসিকে অনুকরণ করার কথা বলেন।

ম্যানসিটির স্ট্রাইকার লেরয় সানে বলেন, গার্দিওলা আমার খেলায় আমুল পরিবর্তন এনেছেন। তিনি আমাকে সব সময় মেসিকে দেখে শিক্ষা নিতে উৎসাহ দেন। আমি আগে শুধু ড্রিবলিংয়ের ওপর গুরুত্ব দিতাম।

২০১৬ সালে যখন ম্যানসিটিতে যোগ দিলাম, গার্দিওলা আমার খেলা গভীরভাবে লক্ষ্য করলেন। আমার প্রত্যেকটি মুভমেন্ট তিনি গভীরভাবে দেখতেন। এরপর তিনি আমাকে মেসির কাছ থেকে শিক্ষা নিতে উৎসাহ দিলেন।

সানে বলেন, পেপ আমার প্রতিটি পদক্ষেপ ভাল করে দেখেন। আমি কিভাবে দৌঁড়াই, কিভাবে ডিফেন্স করি, কিভাবে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড় থেকে নিরাপদে রাখি, এসব কিছুই তিনি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করেন। এরপর তিনি আমাকে পরামর্শ দেন। তিনি আমাকে এক নতুন উচ্চতায় তুলে এনেছেন।

নিজেকে মেসির সমকক্ষ মনে করেন কি না? সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে সাবেক শালকের এই তারকা বলেন, না, না। আমি এখনও তার থেকে অনেক দূরে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *