শেষ পর্যন্ত হাথুরুর কাছে হেরেই গেল বাংলাদেশ!

খেলাধুলা: লক্ষ্যটা ২২২ রানের। উইকেট অনুযায়ী লক্ষ্য কিছুটা কঠিন হলেও অসম্ভব নয় মোটেই। সেই লক্ষ্যে সতর্কভাবে ব্যাটিং শুরু করেছিলেন ডেসিং ওপেনার তামিম ইকবাল ও মোহাম্মদ মিথুন। সুরাঙ্গা লাকমাল ও দুশমন্থ চামিরাকে দেখেশুনে খেলছেন তামিম ও এনামুলের জায়গায় সুযোগ পাওয়া মিথুন।

তবে দুশমন্থ চামিরার আগের বলেই আউট হয়ে যেতে পারতেন তামিম ইকবাল। ডাউন দ্য উইকেটে এসে খেলতে গিয়ে টাইমিংয়ের গড়মিলে বোলারের হাতে ক্যাচ দেন এই ওপেনার। কঠিন ক্যাচটা তালুবন্দি করতে পারেননি বোলার।

এর পরের বলেই উইকেট ছুড়ে দিয়ে আসেন তিনি। শর্ট বল পুল করতে গিয়েছিলেন। কিন্তু টপ এজ হয়ে বল উঠে যায় ওপরে, মিড উইকেটে সহজ ক্যাচ নেন আকিলা ধনঞ্জয়া। ১৮ বলে ৩ রান করে ফিরে যায় তামিম। এরপরেই রান নিতে গিয়ে ফিরে যায় মোহাম্মদ মিথুন। তিনি করে ২৭ বলে ১০ রান। মিথুনের দেখানো পথেই হাটেন সাব্বির রহমান। এরপর আকিলা ধনঞ্জয়ার আগের ওভারেই রিভিউ নিয়ে বেঁচেছিলেন মুশফিক ।

সেই সুযোগটা কাজে লাগাতে পারলেন না মুশফিকুর রহিম। অফ স্পিনারের পরের ওভারে সুইপ করতে গিয়ে শর্ট ফাইন লেগে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন মুশফিক (২২)। তাতে ভাঙে মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে তার ৫৮ রানের চতুর্থ উইকেট জুটি। এরপর আকিলা ধনঞ্জয়ার বলে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ১৪ বলে ৫ রান করেছেন তিনি।

৯০ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর মাহমুদউল্লাহ ও সাইফউদ্দিনের জুটিটা বেশ ভালোই জমে উঠেছিল। কিন্তু ৩৭ রানের জুটি ভেঙেছে রান আউট দুর্ভাগ্যে। সুরঙ্গা লাকমালের বল মিড উইকেটে খেলেছিলেন সাইফউদ্দিন।

নন স্ট্রাইক প্রান্ত থেকে মাহমুদউল্লাহ ছুটে আসেন সিঙ্গেলের জন্য। তবে সাইফউদ্দিন ক্রিজে পৌঁছাতে পারেননি। বল ধরে দৌড়ে গিয়ে স্টাম্প ভেঙে দেন গুনারত্নে। সাইফউদ্দিন ৮ রান করে ফেরে। এর আগে রান আউট হয়েছেন ওপেনার মিথুনও। দলের বিপদে আশার আলো হয়ে টিকে ছিলো মাহমুদউল্লাহ। দলকে বলতে গেলে একাই টেনে নিয়েছেন এই ডানহাতি।

৭০ বলে ৫ চার ও এক ছক্কায় তুলে নিয়েছে ফিফটিও। তারপরেই হেট্রিক করে অভিষিক্ত শেহান মাদুশানাকার পরপর দুই বলে আউট হয়ে গেছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা ও রুবেল হোসেন। ফুলটস বলে মিড উইকেটে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন মাশরাফি (৫)। পরের বলে বোল্ড হয়েছেন রুবেল (০) আর মাহামুদুল্লাহ ফেরেন ৭৫ রানে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
বাংলাদেশ: ১৪২/৯ (৪১.১ ওভার); ব্যাটিং: মুস্তাফিজুর রহমান(০*); আউট: তামিম ইকবাল, মোহাম্মদ মিথুন, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), মাহমুদুল্লাহ, সাব্বির রহমান, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মেহেদি হাসান মিরাজ, মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), রুবেল হোসেন

টার্গেট: ২২২; শ্রীলঙ্কা: ২২১/১০ (৫০ ওভার);

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, মোহাম্মদ মিথুন, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), মাহমুদুল্লাহ, সাব্বির রহমান, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মেহেদি হাসান মিরাজ, মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন

শ্রীলঙ্কা একাদশ: দিনেশ চান্দিমাল, উপুল থারাঙ্গা, দানুস্কা গুনাথিলাকা, নিরোশান ডিকভেলা, আসেলা গুনারত্নে, কুশল মেন্ডিস, আকিলা ধনাঞ্জয়া, সুরাঙ্গা লাকমাল, দুশমস্থ চামিরা, থিসারা পেরেরা ও শেহান মাদুশানাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *