হাথুরুসিংহেকে নিয়ে ভাবার সময় নেই টাইগারদের!

খেলাধুলা: চন্ডিকা হাথুরুসিংহে শ্রীলঙ্কার দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই আলোচনা। গণমাধ্যম থেকে শুরু করে আমজনতা পর্যন্ত। হাথুরুসিংহের শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে কেমন করবে বাংলাদেশ? দেশের ক্রিকেটভক্তরা মুখিয়ে আছেন হাথুর বিপক্ষে তার কিছুদিন আগে আচমকা সাবেক হওয়া শিষ্যদের দেখতে। তাই শুক্রবারের বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ নিঃসন্দেহে আলাদা উত্তাপ ছড়াচ্ছে বাংলাদেশের ঘরে ঘরে।

তবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার হারের পর অনেকেই টাইগারদের জয়ের ব্যাপারে একটু বেশি আত্মবিশ্বাসী। তবে এসব নিয়ে ভাবার বিন্দুমাত্র সময় নেই বলেই জানান অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। জিম্বাবুয়ের জয় তাদের কোন কাজে দেবে না বলেও মনে করেন অধিনায়ক। বরং জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের উদ্বোধনী ম্যাচ যেমন খেলে জিতেছে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেও মাঠে সেই সঠিক খেলাটাই দেখতে চান অধিনায়ক।

শুধু হাথুরুসিংহেই প্রথম বাংলাদেশ ছেড়ে প্রতিপক্ষে যোগ দিয়েছেন এমন নয়। এর আগে ডেভ হোয়াটমোর, শেন জার্গেনসেন, হিথ স্ট্রিকদেরও মোকাবেলা করেছে বাংলাদেশ। যারা একসময়ে বাংলাদেশ দলেরই ছিলেন। তাই বিষয়টিকে পেশাদার হিসেবেই দেখছেন মাশরাফি, ‘পেশাদার ক্রিকেটে এই ধরনের ঘটনা এটাই প্রথম না। একজন কোচ বা একজন খেলোয়াড়ের মুখোমুখি হওয়া। সম্প্রতি যে কোচ ছিল তার মুখোমুখি হওয়া এই প্রথম না।

আমরা এটা অনেক আগেই পেছনে ফেলে এসেছি। যখন তিনি চলে গেছেন তার পরিকল্পনা আমরা পুরোটাই ভুলে গেছি। এখন যারা নতুন কোচ হবে তাদের সাথে আমরা মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছি। এখানে তার ব্যাপারটা নিয়ে আর ভাবার সুযোগই নাই।’

তারপরও কি হাথুরুসিংহে কে নিয়ে একটুও ভাবনা নেই? প্রশ্ন রাখা হয় মাশরাফিকে। এটা বাংলাদেশ ছাড়ার পর হাথুর প্রথম মিশন। এবং প্রথম ম্যাচেই তার দল হেরে আহত সিংহ। কিন্তু ওই প্রশ্নে মাশরাফির সরল জবাব, ‘সত্যি কথা বলতে এসব ম্যাটার করে না। ব্যাক অব মাইন্ডে এটাতো থাকে ম্যাচটা খেলতে হবে জিততে হবে। এর বাইরে কোন সুযোগই নাই চিন্তা করার। চিন্তা করলে হয় কি, শেষ পর্যন্ত আরও বেশি চাপ আসে। আমার কাছে মনে হয় খেলার দিকেই সবার মনোযোগ থাকে। সেটাই আছে আমরা যেন আরও ভালো খেলি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে যেভাবে খেলেছি সেভাবে খেলি। ওইদিকেই সবাই ভাবছে আর এটাই হয়।’

এদিকে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বুধবার হেরে গেছে শ্রীলঙ্কা। আর এই জিম্বাবুয়েকে উড়িয়ে দিয়ে সহজেই জিতেছিল বাংলাদেশ। তবে তাতেও কোন বাড়তি সুবিধা পাবেন পরের ম্যাচে, এমনটা মানতে নারাজ অধিনায়ক। নির্দিষ্ট দিনে ভালো খেললেই জয় আসবে বলে মনে করেন মাশরাফি, ‘জিম্বাবুয়ে কাল যে ব্র্যান্ডটা খেলেছে আমাদেরতো ওইভাবে খেলতে হবে।

এমন না যে জিম্বাবুয়ে ভালো না খেলে জিতেছে। ওরা যে ক্রিকেটটা খেলেছে নির্দিষ্ট দিনে এমন ক্রিকেট না খেলে জেতা সম্ভব না। আমাদের সাথে শ্রীলঙ্কাও এমন খেলতে পারে। তাই আমাদের মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে। যাতে এমন পরিস্থিতি আমরা নিয়ন্ত্রণ করতে পারি। আর জিম্বাবুয়ে যে ক্রিকেটটা খেলেছে আমাদের জিততে হলে ওই ক্রিকেটটাই খেলতে হবে।’

হাথুরুসিংহের চিন্তা বাদ দিয়ে নিজেদের নিয়েই ভাবছে বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার অনুশীলনেও দারুণ সিরিয়াস ছিলেন টাইগাররা। জানেন প্রতিপক্ষ দুইটি দলের খেলোয়াড়দের বাংলাদেশ সম্পর্কে ভালো অভিজ্ঞতা আছে। তাই তারা কোন সুবিধা নেওয়ার আগে নিজেরা যেন বেশি নিতে পারেন সে ভাবনাই ভাবছে মাশরাফির দল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *