আইসিসির বর্ষসেরা কোহলি, দেখুন সম্পূর্ণ একাদশ

খেলাধুলা: চলতি দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে প্রথম দুই টেস্টেই ভারতীয় দলের হার দেখেছে ক্রিকেট বিশ্ব। তবে দলের ভরাডুবির মধ্যেও বিরাট কোহলির ব্যাট থেকে এসেছে একটি সেঞ্চুরি। ২০১৭ সালজুড়েই রানের ফুলঝুরি ছিল কোহলির ব্যাটে। আর তারই পুরস্কার পেতে যাচ্ছে আধুনিক ক্রিকেটের এই ‘রেকর্ড বয়’।

 

গত বছরজুড়ে সব ধরনের ক্রিকেটে বিস্ময়কর ব্যাটিং করার পুরস্কার হিসেবে ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো জুরিদের ভোটে বর্ষসেরা ক্রিকেটারের পুরস্কার ‘স্যার গারফিল্ড সোবার্স ট্রফি’ জিতেছেন ভারতীয় অধিনায়ক কোহলি। শুধু এটুকুতেই আটকে নেই তার পুরস্কারের তালিকা। একই সঙ্গে ওয়ানডেতেও বর্ষসেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। টেস্টের বর্ষসেরা হয়েছেন স্টিভেন স্মিথ।

এসব পুরস্কারের পাশপাশি বর্ষসেরা পুরুষ ওয়ানডে ও টেস্ট দলও ঘোষণা করেছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। বর্ষসেরা এসব দলের কোনোটাতেই সুযোগ হয়নি বাংলাদেশি কোনো ক্রিকেটারের।

 

দল নির্বাচনে ২০১৬ সালের ২১ সেপ্টেম্বর থেকে ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত পারফরম্যান্সকে গণনায় এনেছে আইসিসি। নির্বাচিত টেস্ট ও ওয়ানডে-উভয় দলেরই অধিনায়ক হিসেবে রাখা হয়েছে কোহলিকে।

টেস্ট একাদশে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে তিনজন করে ক্রিকেটার জায়গা পেয়েছেন। দুজন আছেন ইংল্যান্ডের। ওয়ানডে দলে সবচেয়ে বেশি তিনজন খেলোয়াড় ভারতের। পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে দুজন এবং অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড আর আফগানিস্তান থেকে একজন করে খেলোয়াড় আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে একাদশে জায়গা পেয়েছেন।

 

মূলত ক্রিকেটের তিন ফরম্যাট মিলিয়েই ‘স্যার গারফিল্ড সোবার্স ট্রফি’ বা ‘ক্রিকেটার অব দ্য ইয়ার’ নির্বাচিত করা হয়। সে হিসেবে ২০১৬ সালের ২১ সেপ্টেম্বর থেকে ২০১৭ সালের শেষ পর্যন্ত ভারতীয় অধিনায়ক টেস্টে ৭৭.৭০ গড়ে দুই হাজার ২০৩ রান করেছেন। এর মধ্যে আটটি সেঞ্চুরি রয়েছে। ওয়ানডেতে সাত সেঞ্চুরিতে ৮২.৬৩ গড়ে রান এক হাজার ৮১৮। টি-টুয়েন্টিতে ১৫৩ স্ট্রাইক রেটে মোট রান ২৯৯।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে আইসিসির অফিশিয়াল পেজে কোহলি এক ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘এক সঙ্গে ওয়ানডের সেরা খেলোয়াড় এবং স্যার গারফিল্ড সোবার্স ট্রফি জেতার মানে অনেক কিছু। ২০১২ সালে ওডিআইতে সেরা হয়েছিলাম। কিন্তু এই প্রথমবার সোবার্স ট্রফি জিতলাম। এটা আমার জন্য অনেক সম্মানের। বিশ্ব ক্রিকেটে এটাই সবচেয়ে বড়। পরপর দুজন ভারতীয় এটি পাওয়ায় অন্য রকম ভাল লাগছে।’

 

গেল বছর আরেক ভারতীয় রবিচন্দ্রন অশ্বিন এই পুরস্কার পেয়েছিলেন। এ ছাড়া পাকিস্তানের হাসান আলী ‘ইমার্জিং ক্রিকেটার অব দ্য ইয়ার’ নির্বাচিত হয়েছেন। আফগানিস্তানের স্পিনার রশিদ খান পেয়েছেন ‘অ্যাসোসিয়েট ক্রিকেটার অব দ্য ইয়ার’ পুরস্কার।

টেস্ট একাদশ: ডিন এলগার (দক্ষিণ আফ্রিকা), ডেভিড ওয়ার্নার (অস্ট্রেলিয়া), বিরাট কোহলি (অধিনায়ক, ভারত), স্টিভেন স্মিথ (অস্ট্রেলিয়া), চেতেশ্বর পূজারা (ভারত), বেন স্টোকস (ইংল্যান্ড), কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক, দক্ষিণ আফ্রিকা), রবিচন্দ্রন অশ্বিন (ভারত), মিচেল স্টার্ক (অস্ট্রেলিয়া), ক্যাগিসো রাবাদা (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও জেমস অ্যান্ডারসন (ইংল্যান্ড)।

 

ওডিআই একাদশ: ডেভিড ওয়ার্নার (অস্ট্রেলিয়া), রোহিত শর্মা (ভারত), বিরাট কোহলি (অধিনায়ক, ভারত), বাবর আজম (পাকিস্তান), এবি ডি ভিলিয়ার্স (দক্ষিণ আফ্রিকা), কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক, দক্ষিণ আফ্রিকা), বেন স্টোকস (ইংল্যান্ড), ট্রেন্ট বোল্ট, (নিউজিল্যান্ড), হাসান আলী (পাকিস্তান), রশিদ খান (আফগানিস্তান), জসপ্রিত বুমরাহ (ভারত)।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *