টাকার কাছে বিক্রি পুলিশঃ ছেড়ে দিল ধর্ষককে

জাতীয় আর্টিকেল: সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার নলতা ইউনিয়নের পূর্বপাইকাড়া গ্রামের ৬ বছরের শিশু কন্যাকে মনিরুল ইসলাম নামে এক ধর্ষণ করে। রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটিকে নিয়ে যাওয়া হয় থানায়।

পরবর্তীতে হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ করলে ওইদিন রাতেই কালিগঞ্জ থানার পুলিশ ধর্ষককে আটক করে। কিন্তু পরবর্তীতে এক লাখ টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয় আসামিকে।

শিশুটির বাবা জানান, আমার মেয়েটি তারালী মাদরাসার দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী। গত ২০ ডিসেম্বর বেলা ২টার দিকে বাড়িতে কেউ না থাকার সুবাদে ফুঁসলিয়ে শিশুটিকে ঘরের মধ্যে ডেকে নিয়ে যায় মনিরুল কারিগর নামের এক যুবক। এরপর সে ঘরের মধ্যে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। এ সময় মেয়েটির মা তহমিনা খাতুন দেখতে পেলে রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটিকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় মনিরুল।

তিনি বলেন, পরবর্তীতে কালিগঞ্জ থানার পুলিশ ধর্ষক মনিরুল ইসলামকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। জিজ্ঞাসবাদে অভিযুক্ত মনিরুল ধর্ষণের কথা স্বীকার করে। এরপর এক লাখ টাকার বিনিময়ে তাকে ছেড়ে দেয়।

 

এ বিষয়ে কালিগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ ওহিদুজ্জামান বলেন, মেয়েটির পরিবার আমার কাছে এসেছিল। পরে জানলাম থানায় ৫০ হাজার আর মেয়েটির পরিবারে ৫০ হাজার টাকা দেয়ার চুক্তি হয়। সে অনুযায়ী থানায় ৫০ হাজার টাকা দিয়ে আসামিকে ছাড়িয়ে নেয় কিন্তু পরিবার কোনো টাকা পায়নি।

তবে অভিযোগের বিষয়ে কালিগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) মো. রাজীব হোসেন বলেন, কেউ ধর্ষণ হয়েছে এমন কোনো বিষয় আমাদের জানা নেই। তাছাড়া থানায় কেউ অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ দিলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *