ভুল তথ্য দেওয়ায় জন্য ক্ষমা চাইলেন নভোচারী

টেক আর্টিকেল: দায়িত্ব পালনে জাপানের নভোচারী নরিশিগে কানাই গত মাসে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন আইএসএস’এ পাড়ি জমান। কিন্তু মাত্র ৩ সপ্তাহ যেতে না যেতেই নিজের টুইটার বার্তায় এক অদ্ভূত দাবি করে বসেন। জানান, মহাকাশে থেকে মাত্র ক’দিনেই তার আয়তন নাকি বেড়ে গেছে।

অবশ্য মহাকাশে যারা ভ্রমণ করেন সেখানে মাধ্যাকর্ষণ না থাকার কারণে তাদের শরীরের আয়তন ২ থেকে ৩ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে থাকে। শরীরের উপর কোনো প্রকার চাপ না থাকার কারণেই স্পাইনগুলো কিছুটা বৃদ্ধি পেতে দেখা যায়। অবশ্য পৃথিবীতে ফিরে এলে সেই সমস্যাটা আর থাকে না।

কিন্তু জাপানের এই নভোচারী টুইটারে যে দাবি করেন তাতে হতবাক হয়ে যান মহাকাশ বিজ্ঞানীরা। নরিশিগে দাবি করেন, তার আয়তন নাকি ৯ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়েছে! টুইটারে তিনি আরও বলেন, এমন শারীরিক বৃদ্ধিতে তিনি চিন্তিত। কারণ, এই বৃদ্ধি যদি অব্যাহত থাকে তবে পৃথিবীতে ফেরার সময় সয়ুজ নামের বিশেষ ক্যাপসুলে তার জায়গা হবে না।

জাপানের ৪১ বছর বয়সী এই নভোচারী প্রায় ৬ মাসের মিশনে আইএসএস’এ গেছেন। গেল সোমবার এমন টুইট করার পরে স্বাভাবিকভাবেই বিজ্ঞানীরা বিষয়টি জেনে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। অবশ্য এরপরই তিনি মহাকাশ স্টেশনে বসে আরও একটি টুইটার বার্তা দেন।

জানান, মাপের গণ্ডগোলের কারণে প্রথমে ভুল বুঝেছিলেন তিনি। আসলে বৃদ্ধি পেয়েছে ২ সেন্টিমিটার। যা সবার ক্ষেত্রেই হয়ে থাকে। আগে যে ৯ সেন্টিমিটার বৃদ্ধির দাবি করেছিলেন তা ভুল ছিল। এজন্য সবার কাছে ক্ষমাও চান নরিশিগে।

অবশ্য ভুল ধরিয়ে দেয়ার পেছনে আইএসএস’এ থাকা রুশ কমান্ডার এন্টন শাকাপলেরভের বেশ অবদান রয়েছে। টুইটার বার্তাটি দেখে তিনি নিজের শরীরের মাপ নেন। এরপর নিজের টুইটার পাতায় জানান, তার দেহের আয়তনে কোনো পরিবর্তন তিনি দেখছেন না।

একই সঙ্গে জানান, সব নভোচারীর মতো তার নিজেরও আয়তন খুব বেশি হলে ২ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু কোনো কোনো নভোচারী মাপে ভুল করে ফেলেন। এক্ষেত্রেও তাই হয়েছে। কিন্তু এমন তথ্য জেনে অনেকেই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করছে বলেও মন্তব্য করেন রুশ কমান্ডার।

পরে অবশ্য নরিশিগে’ও টুইটারে বলেন, আসল সত্য প্রকাশ পেয়েছে। জেনে ভালো লাগছে যে, পৃথিবীতে ফেরার সময় উচ্চতার কারণে সয়ুজ ক্যাপসুলে বসতে তার সমস্যা হবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *