দাড়ি নিয়ে এনসিসি ট্রেনিংয়ে যাওয়ায় মুসলিম ছাত্রদের শাস্তি!

আন্তর্জাতিক আর্টিকেল: দাড়ি কেটে ফেলতে অস্বীকৃতি জানানোয় নয়াদিল্লির জামেয়া মিল্লিয়া ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ ছাত্রকে ন্যাশনাল ক্যাডেট ট্রেনিং (এনসিসি) ক্যাম্প থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। এমনকি ছাত্রদেরকে শাস্তি হিসেবে একদিন একরাত ক্যাম্পের বাইরে খোলা আকাশের নিচে থাকতে বাধ্য করা হয়েছে। খবর: ডেইলি জং।

কাশ্মীর মিডিয়া সার্ভিসের তথ্য অনুযায়ী দিল্লি থেকে প্রকাশিত একটি ইংরেজি পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়, মুসলিম ছাত্ররা শাস্তির পর ক্যাম্পে এসে অনশন পালন করেন। তারা হিন্দু কর্মকর্তা রাজনেশ কুমার ও অভিজিৎ কুমারের পদত্যাগও দাবি করেন।

ভুক্তভোগী এক ছাত্র বলেন, জামেয়া মিল্লিয়ার ছাত্ররা এক যুগ ধরে দাড়িসহ এনসিসি ট্রেনিং ক্যাম্পে অংশ নিয়ে আসছে। এবারই প্রথম দাড়ি রাখায় তাদের শাস্তি দেওয়া হলো।

ছাত্ররা জানায়, তারা আগেই ক্যাম্প পরিচালনা কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিতভাবে আবেদনে জানিয়েছেন- দাড়ি তাদের ধর্মীয় অনুসঙ্গ যা তারা কেটে ফেলতে পারেন না। অথচ ট্রেনিংয়ের ষষ্ঠ দিন হঠাৎ তাদের বলা হলো- হয় দাড়ি কেটে ফেল, না হয় ক্যাম্প থেকে বেরিয়ে যাও।

ছাত্ররা আরও জানায়, হিন্দু অফিসাররা তাদের এও বলেছেন- ভারতে এখন নরেন্দ্র মোদির ক্ষমতা চলছে। তাই এখানে দাড়ি চলবে না। অবশ্য খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও দাড়ি রাখেন। এছাড়া দেশটির শিখ সম্প্রদায়ের প্রায় সবাই দাড়ি নিয়েই সামরিক বাহিনী এবং সরকারি চাকরি করে আসছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *