এবার সিনেমা বানাবেন রোনালদো!

খেলাধুলা: খেলা ছেড়ে দেওয়ার পর কি করবেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। আর যাই করুন, অবসর নেওয়ার পর নিজেকে কোচিং পেশাদায় জড়াবেন না কখনোই। এটা আগেই নিশ্চিত করে দিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের পর্তুগিজ সুপার স্টার। তাহলে কি করবেন? এবার জানিয়ে দিলেন ভবিষ্যত পরিকল্পনার কথাও। ফুটবল খেলা ছাড়ার পর নাম লেখাবেন চলচ্চিত্র পরিচালকের খাতায়। তৈরি করবেন সিনেমা।

শুধু চলচ্চিত্র পরিচালক বা প্রযোজক নয়, নিজেকে ভবিষ্যতের একজন ঝানু ব্যবসায়ী হিসেবেও দেখেন রোনালদো! রিয়ালের ৩২ বছর বয়সী তারকা নিজেই বললেন, ভবিষ্যতে তিনি সিনেমা বানাবেন বা পাকাপাকিভাবে নাম খেলাবেন ব্যবসায়।

ভবিষ্যতে কি করবেন, এই প্রশ্ন অনেকেই করেছেন। কিন্তু নিজেকে ‘ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড়’ দাবি করা রোনালদো কখনোই স্পষ্ট করে কিছু বলেননি। কিন্তু আলেসান্দ্রো দেল পিয়েরোকে না বলে পারলেন না। ইতালিয়ান কিংবদন্তি দেল পিয়েরো অনেক দিন ধরেই স্কাই টিভি ইতালিয়ানারার সঙ্গে যুক্ত। নামাদামী তারকাদের ধরে নিয়ে গিয়ে খুলে বসেন গল্পের আসর।

স্কাই ইতালিয়ানায় দেল পিয়েরোর অনুষ্ঠানে দেওয়া সাক্ষাৎকার বর্তমান, ভবিষ্যত নিয়ে অনেক কথাই বলেছেন রোনালদো। আড্ডার মুডে তার দীর্ঘ সাক্ষাৎকারটি প্রচারিত হবে জানুয়ারিতে। তবে স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক মার্কা ঠিকই সেই সাক্ষাৎকারের চুম্বক অংশ বের করে এনেছে।

দেল পিয়েরোর সঙ্গে আড্ডায় রোনালদো গড়গড় করে বলেছেন, ‘সিনেমা বানানোর ইচ্ছা আছে আমার। তাছাড়া আমার হোটেল আছে। জিম আছে। নাইকির সঙ্গে পোষাকের স্টোরও আছে। …নিজেকে তাই একজন ব্যবসায়ী হিসেবেও দেখি আমি।’

ফুটবল খেলার পাশাপাশি এরই মধ্যে হোটেল ব্যবসা শুরু করে দিয়েছেন। দেশ পর্তুগাল ও স্পেনে একাধিক হোটেল আছে তার। খেলা ছাড়ার পর ব্যবসাটা তাই পাকাপাকিভাবেই করার ইচ্ছা তার। কিন্তু ঠিক কোন ভূমিকায় সিনেমা বানানোর স্বপ্ন দেখছেন, পরিচালক নাকি প্রযোজক, সেটা স্পষ্ট করে বলেননি। তবে এরই মধ্যে যেহেতু অঢেল টাকার মালিক বনে গেছেন, প্রযোজনা তিনি করতেই পারেন। আর নিজে টাকা লগ্নি করে নিজেই যদি পরিচালনার কাজটি করেন, সেটা তো হবে সোনায় সোহাগা।

তবে চলচ্চিত্র পরিচালক বা ব্যবসায়ী, যেটাই করুন, রোনালদো আত্মবিশ্বাসী সফল তিনি হবেনই। তার আগামীর জীবনটা হবে সুন্দর, সুখের, ‘আমি নিশ্চিত, ফুটবল খেলা ছাড়ার পর আমার জীবনটা হবে খুবই সুন্দর। না, আমি টাকার কথা বলছি না। ফুটবলের বাইরে অন্য কাজ করাটা হবে অনেক আনন্দের।’

ভবিষ্যতের স্বপ্ন আঁকিয়ে ফেলেছেন বটে। তবে সেসব নিয়ে মাঘা না ঘামিয়ে এই মুহূর্তে তার ভাবনা শুধুই ফুটবল খেলা এবং নিজেকে সেরার আসনে ধরে রাখা, ‘এই মুহূর্তে আমার মনোযোগ সেদিকেই, যা আমি করছি। তবে এটা চিরন্তন সত্য যে, একদিন না একদিন অবসর নিতেই হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *