শক্তি বাড়াচ্ছে টাইগাররা

খেলাধুলা: স্কিল ট্রেনিং যখন শুরু হবে তখন নেট খালি পাওয়াই দুস্কর। লম্বা সময় নিয়েই ব্যাটিং করেন ব্যাটসম্যানরা। সেখানে আলাদা করে বোলারদের ব্যাটিং করার সুযোগ তেমনটা থাকে না বললেই চলে।

কিন্তু আধুনিক ক্রিকেটে ম্যাচের মোড় ঘোরাতে লেজের দিকের ব্যাটসম্যানদেরও প্রায়শই কিছু রান করতে হয়। তাই রুবেল-তাসকিন-মোস্তাফিজদের ব্যাটিং অনুশীলনটাও জরুরী। সেটা ভেবেই মূল অনুশীলন শুরুর আগে বৃহস্পতিবার দীর্ঘক্ষণ বোলারদের ব্যাটিং অনুশীলন করালেন দলের অলিখিত কোচ টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন।

এদিন সকালে যথারীতি ফিটনেস নিয়ে কাজ করেন ক্রিকেটাররা। মারিয়ো ভিন্নাভারায়েনের অধীনে জিমে ঘাম ঝড়ানোর পর একাডেমি মাঠে দুইভাগে বিভক্ত হয়ে অনুশীলন করেন ক্রিকেটাররা। মূলত দলের বোলাররাই তখন উপস্থিত ছিলেন। একে একে পালাক্রমে নেটে ব্যাটিং করেন মোস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহেমদ, রুবেল হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ ও শফিউল ইসলাম। সঙ্গে ছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও।

একই সময়ে মাঝখানের উইকেটে বাকি পেসারদের নিয়ে কাজ করেন সুজন ও গোলাম নওশের প্রিন্স। ইনসুইং নিয়ে কাজ করেন তারা। সাইফউদ্দিন, আবু হায়দার রনি, আবু জায়েদ রাহী, আরিফুল হক, কামরুল ইসলাম রাব্বি, আবুল হোসেন রাজুরা বল করেন। এরপর নেট থেকে এসে তাদের সঙ্গে যোগ দেন মোস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহেমদ, রুবেল হোসেন ও শফিউল ইসলামও।

বোলারদের ব্যাটিং অনুশীলন কারণটাও ব্যাখ্যা করেন সুজন, ‘যখন স্কিল ট্রেনিং শুরু হয়ে যায় ব্যাটসম্যানরা অনেক সময় নিয়ে ব্যাটিং করে। পেসাররা অত সময় পায় না। সব সংস্করণেই বোলারদের দরকার হয় ব্যাটিং করার। লেজের দিকে গিয়ে ১৫/২০ রান করা অনেক গুরুত্বপূর্ণ হয়ে যায়। ওদের ব্যাটিং নিয়ে কাজ করছিলাম।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *